২০২২ সাল শেষ হতে চলল নতুন স্মার্টফোন বাজার দুয়ারে কড়া নাড়ছে

post top

এ বছর প্রযুক্তির দুনিয়ায় বেশ আলোচিত ছিল নিত্যনতুন স্মার্টফোন। এর মধ্যে কিছু মডেলে ছিল দুর্দান্ত ক্যামেরা। এসব ফোনের ফোনের ক্যামেরার ফিচার যেনো ডিএসএলআর ক্যামেরাকেও হার মানায়। জানুন এমনই কয়েকটি স্মার্টফোন সম্পর্কে।

শাওমি ১২ প্রো

শাওমি ১২ প্রো মডেলে ৬.৭৩ ইঞ্চির ডিসপ্লে রয়েছে। এতে এলটিপিও অ্যামোলিড স্ক্রিন রয়েছে। ১২০ হার্জ রিফ্রেশ রেটের এই ডিসপ্লেতে টু কে রেজুলেশন উপভোগ করা যাবে। ফোনটি পরিচালনার জন্য দেওয়া হয়েছে কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৮ জেনারেশন ১ প্রসেসর। এই প্রসেসর ঠান্ডা করার জন্য বিশেষ কুলিং প্রযুক্তি ব্যবহার করেছে শাওমি। হ্যান্ডসেটিতে ৫০ মেগাপিক্সেল প্রাইমারি ক্যামেরার সঙ্গে রয়েছে ৫০ মেগাপিক্সেলের আলট্রা ওয়াইড ক্যামেরা ও ৫০ মেগাপিক্সেলের টেলিফটো ক্যামেরা। এই ক্যামেরায় এইচডিআর ১০ প্লাস সাপোর্ট মিলবে। পাশাপাশি এতে এইট কে মানের ভিডিও রেকর্ডিং করা যাবে। ক্যামেরায় বিশেষ ফিচার হিসেবে থাকছে আলট্রা নাইট মোড, পোট্রেট মোড।

ভিভো এক্স ৮০ প্রো

বছরের অন্যতম আলোচিত ফোন ভিভোর এক্স ৮০ প্রো মডেল। এই ফোনে রয়েছে কোয়ালকমের স্ন্যাপড্রাগন ৮ জেনারেশন ১ চিপসেট। ৫০ মেগাপিক্সেলের মেইন ক্যামেরা পাবেন এই হ্যান্ডসেটে। এছাড়াও এই ফোনে ৪৮, ১২ ও ৮ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা রয়েছে। এসব ক্যামেরায় কার্ল জেইসের সিনেমাটিক ভিডিও বোকে সিস্টেম ব্যবহার করেছে ভিভো। এই ফিচারে ভিডিও রেকর্ডিংয়ের সময়ও ব্যাকগ্রাউন্ড ব্লার করা যাবে। যা ভিডিও ফুটেজে দেবে সিনেমাটিক ইফেক্ট।

অপো রেনো ৮ প্রো

অপো রেনো ৮ প্রো মূলত একটি ফটোগ্রাফি ফোন। এই ফোনে ডুয়াল সনি ক্যামেরা ব্যবহার হয়েছে। রিয়ার ক্যামেরায় রয়েছে ৫০ মেগাপিক্সেলের প্রাইমারি সেন্সর। সঙ্গে রয়েছে ৮ মেগাপিক্সেলের আলট্রা ওয়াইড ক্যামেরা ও ২ মেগাপিক্সেলের ম্যাক্রো ক্যামেরা। সেলফি তোলার জন্য ৩২ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট শুটার দিয়েছে অপো। ছবি তুলে এডিট করার জন্য বিশেষ অ্যাপ রয়েছে হ্যান্ডসেটটিতে।

মটোরোলা এজ ৩০ আল্ট্রা

এই ফোনের প্রধান আকর্ষণ ২০০ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা। এই ক্যামেরা দিয়ে ৪কে এইচডিআর ১০ প্লাস মানের ভিডিও ধারণ করা যাবে। ২০০ মেগাপিক্সেলের প্রধান ক্যামেরা ছাড়াও ডিভাইসটিতে ৫০ মেগাপিক্সেলের আলট্রা ওয়াইড ক্যামেরা ও ১২ মেগাপিক্সেলের টেলিফটো ক্যামেরা দিয়েছে মটোরোলা। সেলফি ও ভিডিও কলিংয়ের জন্য এই ফোনে ৬০ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা রয়েছে।

স্যামসাং গ্যালাক্সি এস২২ আল্ট্রা

স্যামসাং গ্যালাক্সি এস২২ আল্ট্রা মডেলের পেছনে ৪টি ক্যামেরা দেওয়া হয়েছে। এর একটি ক্যামেরায় ১০৮ মেগাপিক্সেলের রেজুলেশন মিলবে। ক্যামেরা সেটাপে আরও আছে ১২ ও ১০ মেগাপিক্সেলের সেন্সর।

এই মোবাইলে তোলা ভিডিও ফুটেজে কোনও শেক দেখা যাবে না। কেননা এতে রয়েছে সুপার স্টেডি মোড। এছাড়াও পাবেন সুপার এইচডিআর মোড। যা ছবির কালার উন্নত করবে। সেলফি ও ভিডিও ক্যামেরার জন্য এই ফোনে রয়েছে ৪০ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা।

আইফোন ১৪ প্রো ম্যাক্স

লেটেস্ট জেনারেশনের ফ্ল্যাগশিপ আইফোনে রয়েছে এ১৬ বায়োনিক চিপ। এই ফোনের ৪৮ মেগাপিক্সেলের প্রাইমারি ক্যামেরায় রয়েছে সেকেন্ড জেনারেশন সেন্সর শিফট প্রযুক্তি। যা ইমেজ স্টেবিলাজেশনে কাজে লাগে। এছাড়াও অ্যাপলের আইফোন ১৪ প্রো ম্যাক্স ফোনে রয়েছে ফটোনিক ইঞ্জিন ডিপ ফিউশন স্মার্ট এইচডিআর ৪, পোট্রেট মোড, অ্যাডভান্সড বোকে মোড, ডেপথ কন্ট্রোলের মতো অত্যাধুনিক ফিচার। সেলফি ও ভিডিও কলিংয়ের জন্য রয়েছে ১২ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা। তথ্য সূত্র: টেকজুম ডটটিভি।

print

Share this post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

twenty − thirteen =