রাশিয়ার করোনা টিকা নিরাপদ: ল্যান্সেটের প্রতিবেদন

post top

শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে তুলতে সক্ষম রাশিয়ার করোনা টিকা স্পুটনিক–ভি। এমনকি ভ্যাকসিন প্রয়োগে শরীরে গুরুতর পার্শ্ব–প্রতিক্রিয়াও নেই। শুক্রবার বিজ্ঞান পত্রিকা ‘‌ল্যান্সেট’ এ প্রকাশিত গবেষণা প্রতিবেদনে এমনটি জানানো হয়েছে। তবে যেহেতু অনেক কম মানুষের ওপর টিকা–পরীক্ষা হয়েছে, তাই এ বিষয়ে ভালো বোঝা যাচ্ছে না বলে মত বিশেষজ্ঞদের।

শুরু থেকেই পশ্চিমা দেশগুলো রাশিয়ার ভ্যাকসিন গ্রহণ করতে নারাজ। তাদের দাবি, নিয়ম মেনে টিকা তৈরি করা হয়নি, পাশাপাশি টিকা–পরীক্ষার রিপোর্টও প্রকাশ করেনি মস্কো। তবে সমালোচনায় কান না দিয়েই গবেষণা চালিয়ে গেছে পুতিন সরকার। এমনকি সেপ্টেম্বরে টিকা বাণিজ্যিকভাবে বাজারে নিয়ে আসার ঘোষণাও দিয়েছে।

ল্যান্সেটে দু’‌টি ট্রায়ালের রিপোর্ট প্রকাশ করা হয়েছে। দু’‌টি ট্রায়ালেই ১৮ থেকে ৬০ বছর বয়সের মধ্যে ৩৮ জন স্বাস্থ্যবান মানুষের ওপর পরীক্ষা চালানো হয়েছে। দুই ধাপে তাদের শরীরে টিকা প্রয়োগ করা হয়েছে। শুরুতে একবার, ফের ২১ দিনের মাথায় আরও একটি ডোজ দেওয়া হয়েছে। টানা ৪২ দিন তাদের নজরে রেখে দেখা গেছে, প্রথম তিন সপ্তাহ অর্থাৎ ২১ দিনের মধ্যেই তাদের শরীরে অ্যান্টিবডি তৈরি হচ্ছে।

গবেষকরাও বলছেন, টিকা নিরাপদ এবং দীর্ঘমেয়াদে কার্যকরী কিনা, তা জানতে হলে আরও বড় মাপের পরীক্ষা চালাতে হবে। আরও বেশি মানুষের শরীরে এই টিকা প্রয়োগ করে দেখতে হবে। ইতিমধ্যেই হিউম্যান ট্রায়ালের তৃতীয় পর্যায়ের কাজ শুরু করে দিয়েছে রাশিয়া। ওই ট্রায়ালে ৪০ হাজার মানু্যের শরীরে টিকা প্রয়োগ করা হবে বলে জানা গেছে।

জনস হপকিনস ব্লুমবার্গ স্কুল অফ পাবলিক হেল্থ এর বিশেষজ্ঞ নাওর বারজীভ বলেন, ‘‌রিপোর্ট আশা দেখালেও এটি ছোটমাপের পরীক্ষা। কোভিডে যাঁরা বেশি সংক্রমিত হচ্ছেন অর্থাৎ বয়স্কদের ওপর এই টিকা কীভাবে কাজ করে, সেটা জানা যায়নি!‌’

print

Share this post

post bottom

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

5 × 5 =