বেরোবির শিক্ষার্থীরা করোনার তিন মাসেও আর্থিক সহায়তা পায়নি

post top

করোনাকালে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) অস্বচ্ছল শিক্ষার্থীদের এককালীন আর্থিক সহায়তা দেওয়ার ঘোষণা দিলেও দীর্ঘ প্রায় তিন মাসেও তা বাস্তবায়ন করতে পারেনি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। আবেদন আহবান করে সহায়তা না দেওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছে শিক্ষার্থীরা।

তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি সূত্র বলেছে, ক্যাম্পাস খুললেই মনোনিতদের দুই হাজার করে টাকা দেওয়া হবে। বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে, গত ১০ মে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার আবু হেনা মোস্তফা কামাল স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে বিশ্ববিদ্যালয় তহবীল থেকে অস্বচ্ছল শিক্ষার্থীদের এককালীন আর্থিক সহায়তা দেওয়ার করার কথা জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পর অর্থ সহায়তা চেয়ে আবেদন করেন দুই হাজারের অধিক শিক্ষার্থী। কিন্তু আবেদন করার প্রায় তিন মাস অতিবাহিত হলেও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন এখন পর্যন্ত কোনো শিক্ষার্থীকে অর্থ সহায়তা দেয়নি।

কয়েকজন শিক্ষার্থী জানান, এই অনুদানের অর্থ আরো অনেক আগেই দেওয়া উচিৎ ছিল। ধীরে ধীরে সব কিছু স্বাভাবিক হতে শুরু করলেও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন এখন পর্যন্ত অনুদান দেয়নি।

আপদকালীন সময়ের ঘোষিত এমন একটা স্পর্শকাতর অনুদান বাস্তবায়নে বিলম্ব করাটা প্রশাসনের উদাসীনতা ছাড়া কিছুই নয়। যতদ্রুত সম্ভব এটা বাস্তবায়নে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের আশুদৃষ্টি কামনা করেন শিক্ষার্থীরা।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে একজন কর্মকর্তা জানান, করোনা মহামারীর পর ক্যাম্পাস খোলার সাথে সাথে অনুদানের জন্য যারা চূড়ান্ত মনোনিত হয়েছেন, তাদের প্রত্যেককে নগত দুই হাজার টাকা করে দেওয়া হবে।

এ ব্যাপারে জানতে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার আবু হেনা মোস্তফা কামাল এবং উপাচার্য অধ্যাপক ড. নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহর মোবাইলে একাধিকবার ফোন দেয়া হলেও তারা রিসিভ করেনি।

print

Share this post

post bottom

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

13 + 2 =