বন্যার্তদের সহযোগিতার জন্য ঢাকার রাস্তায় টাংগাইলে কালিহাতি উপজেলার মেয়ে ফাতিমা নওরিন

post top

সিলেটের প্রলয়ন্কারী বন্যার শিকার মানুষের জন্য তহবিল সংগ্রহে ঢাকার রাস্তায় রাস্তায় ঘুরছে টাংগাইলে মেয়ে ফাতিমা নওরিন মেরি৷ তিনি তার সহযোগীদের নিয়েপথচারীদের নিকট থেকে অর্থ সংগ্রহ করছেন.

প্রেসক্লাব এলাকায় দেখা হলো তার সাথে। আলাপচারিতার তিনি জানালেন গত১০ বছর ধরে দরিদ্র মেডিকেল শিক্ষার্থীসহ অনেক গুলো শিক্ষার্থীর পড়াশুনা এগিয়ে নেওয়ার জন্য আত্নীয় স্বজন, বন্ধু বান্ধবদের নিকট থেকে অর্থ সংগ্রহ করেছেন তিনি। তবে অসহায়দের জন্য রাস্তায় দাড়িয়ে অর্থ সংকট এই প্রথম। কারন হিসেবে তিনি- বললেন- সিলেটের সুনামগঞ্জ মানুষের বিশেষকরে দরিদ্র মানুষের অবস্থা এখন খুবই সংকটাপন্ন। আশ্রয় খাদ্য, চিকিৎসা সহ নানা সংকট বিদ্যমান রয়েছে, বিশেষ করে শিশু বাচ্চা বয়স্ক ব্যক্তিদের জন্য খুব কস্টকর অবস্হা যাচ্ছে – বাচ্চা কান্নায় রোল, মায়ের আাহাজারি গত ৪ দিনে এক বেলা খিচুড়ি খেয়েছিল – আর বাকী সময় চিঁড়া মুরি খেয়ে আছেন,, বাচ্চা বুকের দুধের জন্য কান্নার রোল যেন থামছেই না৷ আশ্রয় কেন্দ্র গুলো অন্ধকার এই বিশেষ পরিস্হিতি তে আমি ঘরে বসে না তাদের জন্য দলবল নিয়ে বেরিয়ে পরি-৷ তিনি আরো জানালেন উল্লেখযোগ্য একটি তহবিল সৃষ্টির জন্য সর্বোচ্চ চেস্টা করে যাবেন -তিনি বলেন খুব,
সাধারণ মানুষও ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র অর্থ সাহায্য করছেন রিকশাচালক, ভ্যানচালক পুলিশ, সাধারন ব্যবসায়ী ফলোর দোকানদার বিশেষকরে ১০ টাকার কাউন্টেবল ফান্ড দিন শেযে বড় অংকে অর্থ কালেকশন ফান্ড হয়ো দাড়িয়েছে –
তিনি বলেন বন্যার পানি নেমে গেলেও ক্ষতি গ্রস্ত মানুষের পুর্নবাসনে পুরো বছর লেগে যাবে৷ সে জন্য আামরা কাজে কোন অবহেলা রাখিনি, আমি আশানুরূপ সহযোগিতা,পাচ্ছি। অনেক বাস হেলপার নিজে আমাদের অর্থ সহযোগিতা দিচ্ছেন তা সত্বেও বাসে উঠে অর্থ যোগানে সহযোগিতা করছেন- এ ধরনের অর্থ সংগ্রহে বিশ্বাসযোগ্যতার জন্য ব্যাক্তির পরিচয় গুরুত্বপূর্ণ। সেটা ভেবেই আমি বাংলাদেশের ওয়ার্কাস পার্টির ব্যানারে অর্থ সংগ্রহ করছি। আমি আমার কাজের জন্য পরিতৃপ্ত তবে বন্যাদুর্গত এলাকার জীবজন্তু গরুবাছুর বানর পশুপাখি এদের জন্য আমি কিছুই করতে পারছিনা৷
এখানে ফাতিমা নওরিন আরো জানালেন পরিবারের জীবনযাএা বিঘ্ন ঘটলেও মানবিক কারনেই পরিবারের পক্ষ থেকে সহযোগিতা পাচ্ছি। তিনি সকলের সহযোগিতা দোয়া প্রার্থী –

print

Share this post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

8 + 16 =