প্রধানমন্ত্রী যা বলেন জনগণ উল্টোটা বিশ্বাস করে: রুহুল কবির রিজভী

post top

গুম-খুন-বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃষ্টি আকর্ষণ করে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, বর্তমান সরকার ও প্রধানমন্ত্রী যা বলেন জনগণ তার উল্টোটা বিশ্বাস করে।

বুধবার দলের ৪২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের নিচে ঢাকা জেলা বিএনপি আয়োজিত আলোচনা সভায় এ কথা বলেন রিজভী।

প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘আপনার হাতে কি আছে প্রধানমন্ত্রী? আপনার হাতে এম ইলিয়াস আলীর গুম নেই, সাইফুল ইসলাম হিরুর গুম আপনার হাতে নেই? তেজগাঁওয়ের সুমনের গুম আপনার হাতে নেই? নাটোরের উপজেলা চেয়ারম্যান সানাউল্লাহ নূর, তাকে খুন করে রাস্তায় তার লাশের ওপর লাফিয়েছিলো আপনারই রাজনৈতিক সন্তান যুবলীগ-ছাত্রলীগের নেতারা। সেই হত্যার রক্ত আপনার হাতে নেই? নিজের হাতে কত রক্ত ভরে আছে, গুম ভরে আছে, কত বিচারবহির্ভূত হত্যার রক্ত আপনার হাতে লেগে আছে সেদিকে তাকান। তারপরে অন্যের বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করবেন।’

গত সোমবার শোক দিবস উপলক্ষে ছাত্রলীগের আলোচনা সভায় আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান, তার স্ত্রী খালেদা জিয়া এবং তাদের ছেলে তারেক রহমান সবার হাতে রক্তের দাগ রয়েছে। জিয়াউর রহমান গুম-খুনের রাজনীতি শুরু করে গেছেন। যার ধারাবাহিকতায় খালেদা জিয়া অপারেশন ক্লিনহার্টের নামে মানুষ হত্যা করেছেন। আন্দোলনের নামে মানুষ পুড়িয়ে হত্যা করেছেন।’

প্রধানমন্ত্রীর সমালোচনা করে রিজভী বলেন, ‘আপনি (শেখ হাসিনা) আগেও কখনও বলেননি। কিন্তু হঠাৎ করে বিএনপির বিরুদ্ধে এতো অপপ্রচার করছেন। বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রবক্তা, স্বাধীনতার ঘোষক শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানকে ১৫ আগস্টের সাথে জড়িয়ে এবং বিএনপি চেয়ারপারসন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও তারুণ্যের প্রতীক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার সঙ্গে জড়িয়ে নানা কথা বলছেন। আপনার সামর্থ্য থাকলে একটি সুষ্ঠু নির্বাচন দিন। মানুষ যদি অন্যায় করেন তবেতো মানুষের সমর্থন থাকবে না।’

রিজভী বলেন, ‘আপনি (প্রধানমন্ত্রী) সুষ্ঠু নির্বাচন না দিয়ে একটি অভিনব নির্বাচন ব্যবস্থা চালু করেছেন। দিনের ভোট রাতে করে ফেলছেন। আগেতো ভোটারদের কেন্দ্রে যেতে দিতেন না, আর এখন সেখানেও নিরাপদ বোধ না করে দিনের ভোট রাতে করছেন। তাই বলছি, একটি সুষ্ঠু ভোট দিন, জনগণ বিচার করবে কে অপরাধী। আপনি তো সুষ্ঠু ভোট দিতে চান না। তাহলে বুঝেন, আপনি কত বড় অপরাধী।’

ঢাকা জেলা বিএনপির সভাপতি ডা. দেওয়ান সালাউদ্দিনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক খন্দকার আবু আশফাকের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম আজাদ, নির্বাহী কমিটির সদস্য অ্যাডভোকেট নিপুন রায় চৌধুরী প্রমুখ।

print

Share this post

post bottom

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

twenty − 14 =