নেদারল্যান্ডসের কাছে ১৩ রানে হেরে বিদায় নিলো দক্ষিণ আফ্রিকা

post top

নেদারল্যান্ডসের কাছে ১৩ রানে হেরে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভ থেকে বিদায় নিলো দক্ষিণ আফ্রিকা।
দক্ষিণ আফ্রিকার বিদায়ে বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে যাবার সুযোগ তৈরি হলো বাংলাদেশের। আজ সুপার টুয়েলভে গ্রুপ-২এ নিজেদের শেষ ম্যাচে পাকিস্তানকে হারালেই সেমিফাইনালে খেলবে সাকিবের দল। প্রোটিয়াদের হারে ভারতের সেমিফাইনাল নিশ্চিত হয়ে গেছে।
৫ খেলায় ৫ পয়েন্ট নিয়ে বিশ্বকাপ শেষ করলো দক্ষিণ আফ্রিকা। ৪ ম্যাচে ৬ পয়েন্টে সবার উপরে ভারত। ৪ খেলায় ৪ পয়েন্ট করে নিয়ে সেমির দৌঁড়ে বাংলাদেশ-পাকিস্তান। ৫ ম্যাচে ৪ পয়েন্ট নেদারল্যান্ডসের।

 
জিতলেই সেমিফাইনালে, এমন সমীকরণে সুপার টুয়েলভে গ্রুপ-২এ নিজেদের পঞ্চম ও শেষ ম্যাচে নেদারল্যান্ডসের মুখোমুখি হয় দক্ষিণ আফ্রিকা।
অ্যাডিলেডে টস জিতে প্রথমে বোলিং বেছে নেয় দক্ষিণ আফ্রিকা। ব্যাট হাতে দলকে দারুন সূচনা এনে দেন নেদারল্যান্ডসের দুই ওপেনার স্টেফান মাইবার্গ ও ম্যাক্স ও’দাউদ। ৫১ বল খেলে ৫৮ রান যোগ করেন তারা। নেদারল্যান্ডসের উদ্বোধনী ভাঙ্গেন দক্ষিণ আফ্রিকার অকেশনাল স্পিনার আইডেন মার্করাম। ৩০ বলে ৩৭ রান করে আউট হন মাইবার্গ।
দ্বিতীয় উইকেটে দ্রুত ২৫ বল খেলে ৩৯ রান তুলেন টম কুমার ও ও’দাউদ। । মারমুখী মেজাজে ১৯ বলে ২টি করে চার-ছক্কায় ৩৫ রান করেন কুপার।

মিডল-অর্ডারে কলিন অ্যাকারম্যানের ৩টি চার ও ২টি ছক্কায় সাজানো ২৬ বলে অপরাজিত ৪১ রানে লড়াই করার পুঁিজ পায় নেদারল্যান্ডস। ২০ ওভারে ৪ উইকেটে ১৫৮ রান তুলে ডাচরা। দক্ষিণ আফ্রিকার স্পিনার কেশব মহারাজ ২৭ রানে ২ উইকেট নেন।
সেমির টিকিট পেতে ১৫৯ রানের টার্গেটে তৃতীয় ওভারে প্রথম উইকেট হারায় দক্ষিণ আফ্রিকা। ১৩ বলে ১৩ রান করে আউট হন ডি কক।

পাওয়ার-প্লের শেষ ওভারে বিদায় নেন অধিনায়ক তেম্বা বাভুমা। ২০ বলে ২০ রান করেন তিনি। দুই ওপেনারকে হারিয়ে ৬ ওভার শেষে দক্ষিণ আফ্রিকার রান ৩৯।
দুই ওপেনারের মত দক্ষিণ আফ্রিকার মিডল-অর্ডার ব্যাটারদের বড় ইনিংস খেলতে দেয়নি নেদারল্যান্ডসের বোলাররা। রিলি রৌসু ১৯ বলে ২৫, মার্করাম ১৩ বলে ১৭, ডেভিড মিলার ১৭ বলে ১৭ ও ওয়েন পারনেল খালি হাতে রান করেন। ১৬তম ওভারে ১১৩ রানে ৬ উইকেট হারিয়ে মহা চিন্তায় পড়ে দক্ষিণ আফ্রিকা।

শেষ ৪ ওভারে ৪৪ রান দরকার পড়ে দক্ষিণ আফ্রিকা। স্বীকৃত ব্যাটারদের মধ্যে উইকেটে ছিলেন হেনরিচ ক্লাসেন। ১৮তম ওভারে ব্যক্তিগত ২১ রানে বিদায় নেন তিনি। শেষ পর্যন্ত দক্ষিণ আফ্রিকাকে টার্গেট স্পর্শ করতে দেয়নি নেদারল্যান্ডসের বোলাররা। ২০ ওভারে ৮ উইকেটে ১৪৫ রান করে ম্যাচ হারে প্রোটিয়ারা।

নেদারল্যান্ডসের কাছে অঘটনের শিকার হয়ে সেমিতে উঠার স্বপ্ন চুরমার হলো দক্ষিণ আফ্রিকার। গতবার রান রেটের মারপ্যাচে পড়ে সেমিতে উঠতে পারেনি প্রোটিয়ারা। ২০০৯ ও ২০১৪ সালের আসরে সর্বশেষ সেমিফাইনাল খেলেছিলো দক্ষিণ আফ্রিকা।
বল হাতে নেদারল্যান্ডসের ব্র্যান্ডন গ্লোভার ২ ওভারে ৯ রানে ৩ উইকেট নেন। ২টি করে শিকার ছিলো ফ্রেড ক্লাসেন-বাস ডি লিডের। ম্যাচ সেরা হন ডাচদের অ্যাকারম্যান।

print

Share this post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

twenty − 2 =