আপনার ল্যাপটপ গরম হচ্ছে?

post top

ওয়ার্ক ফ্রম হোম চালু হওয়ার পর থেকেই ল্যাপটপের ওভার হিটিং নিয়ে কর্মীর অভিযোগের শেষ নেই। এতে ল্যাপটপের নানা ধরনের সমস্যা দেখা দিতে পরে। তবে কিছুটা কৌশলী হয়ে ব্যবহার করলে ওভার হিটিংয়ের হাত থেকে রেহাই পাওয়া সম্ভব। তাহলে চলুন জেনে নেওয়া যাক-

ল্যাপটপে থাকা ফ্যানের অবস্থা চেক করুন

সাধারণত ল্যাপটপের অভ্যন্তরীণ বডিতে একটি কুলিং ফ্যান দেওয়া থাকে। এটি গরম হাওয়া বের করে ডিভাইসটিকে ঠাণ্ডা রাখে। কিন্তু, ঘণ্টার পর ঘণ্টা ল্যাপটপ ব্যবহারের ফলে ওভার-হিটিংয়ের সমস্যা দেখা দেয়। এ ক্ষেত্রে  ৪ থেকে ৫ ঘণ্টা পরপর ল্যাপটপ রিস্টার্ট করে ব্যবহার করা উচিত। এছাড়াও ল্যাপটপে থাকা কুলিং ফ্যান নিয়মিত চেক করতে হবে।

কুলিং প্যাড ব্যবহার করুন

যারা টানা ল্যাপটপে কাজ করেন, তাদের কুলিং প্যাড ব্যবহার করা উচিত। এতে ল্যাপটপের তাপমাত্রাকে ঠিকঠাক রাখে। ফলে বারবার  রিস্টার্ট করার ঝামেলা পোহাতে হবে না। মার্কেটে ৩০০ টাকা থেকে শুরু করে ১,০০০ টাকার মধ্যে কুলিং প্যাড পাওয়া যায়।

ল্যাপটপ স্ট্যান্ডের ব্যবহার করুন

অনেক সময়ে ল্যাপটপের সার্ফেস শক্ত জায়গায় রাখার জন্য কুলিং ফ্যানটি সঠিক ভাবে কাজ করতে পারে না। ফলে ল্যাপটপ মাত্রাতিরিক্ত গরম হয়ে যায়। তবে ল্যাপটপটি স্ট্যান্ডে রেখে কাজ করলে এ ধরনের সমস্যা দেখা দেবে না। এছাড়াও স্ট্যান্ডে রেখে কাজ করলে সুবিধা মতো ল্যাপটপের হাইট বা অ্যাঙ্গেলকে অ্যাডজাস্ট করা সম্ভব। মার্কেটে ৫০০ টাকা থেকে শুরু করে ২,০০০ টাকা পর্যন্ত বিভিন্ন প্রকারের ল্যাপটপ স্ট্যান্ড পাওয়া যাবে।

বিছানা বা বালিশের ওপর ল্যাপটপ রেখে কাজ করবেন না

অনেকেই আছেন বিছানা বা বালিশের ওপর ল্যাপটপ রেখে কাজ করতে পছন্দ করেন। কিন্তু এর ফলে ল্যাপটপের ফ্যান যথাযথ ভাবে কাজ করতে পারে না এবং ল্যাপটপটি অতিরিক্ত গরম হয়ে যায়। এক্ষেত্রে একটি ফোল্ডেবল বেড স্টাডি টেবিলের ওপর ল্যাপটপটিকে রেখে কাজ করুন। এতে করে ফ্যান সহজেই হিট নির্গমন করতে পারবে, আর আপনার ল্যাপটপটিও ঠাণ্ডা থাকবে। এই বেড স্টাডি টেবিলগুলির দাম ৫০০ টাকা থেকে ২,০০০ টাকার মধ্যে পড়বে।

ঠাণ্ডা জায়গায় ল্যাপটপটিকে ব্যবহার করুন

ল্যাপটপে যাতে রোদ না লাগে সেদিকে অবশ্যই খেয়াল রাখুন। কারণ, সরাসরি রোদ বা প্রচণ্ড গরমের মধ্যে ল্যাপটপ ব্যবহার করলে ওভার-হিটিং -এর সমস্যা দেখা দিতে পারে। বিশেষ করে গরম কালে তাপমাত্রা বেশি থাকায় ডিভাইসটি বেশি গরম হয়। তাই, ফ্যান বা এয়ারকন্ডিশনার চালিয়ে ঘর ঠাণ্ডা করে তবেই ল্যাপটপ ব্যবহার করা উচিত।

print

Share this post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eleven + 20 =